টিপস

অনলাইনে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম (অ্যাপ, ওয়েবসাইট)

সুপ্রিয় পাঠক বৃন্দ, আশা করি সকলে ভাল আছেন। আপনাদের সামনে নতুন আরেকটি অনুচ্ছেদ নিয়ে হাজির হয়ে গেলাম। আপনি যদি অনলাইনে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম জানতে চান তাহলে আমার আজকের অনুচ্ছেদ আপনার জন্যই। আমার আজকের অনুচ্ছেদে কিভাবে অনলাইনে ডাচ-বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলা যায় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। বিস্তারিত তথ্য পেতে আমার লেখাটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পাঠ করার অনুরোধ রইলো।

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্টের সুবিধা

বেসরকারি ব্যাংক হিসেবে বেশ পুরনো এবং শুরুর দিকের একটি ব্যাংক হিসেবে পরিচিত ডাচ বাংলা ব্যাংক। বাংলাদেশ এবং নেদারল্যান্ডের যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। বর্তমানে এই ব্যাংকটি শাখা ও এটিএম মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট ব্যাংকিং সহ বিভিন্ন ধরনের সেবা প্রদান করে আসছে। সেবার মান ভালো হওয়ার কারণে অনেক গ্রাহকই ডাচ বাংলা ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খোলার আগ্রহ প্রকাশ করে থাকেন। ডাচ বাংলা ব্যাংকে সেভিংস একাউন্ট থাকলে যে সকল সুবিধা পাওয়া যাবে-

  • ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা।
  • ডেবিট অথবা ক্রেডিট কার্ড নেয়ার সুবিধা।
  • কম খরচে লেনদেনের সুযোগ।
  • লোন সেবা নেয়ার সুযোগ।
  • জমা টাকার উপর মুনাফা গ্রহণের সুযোগ।
  • যেকোনো শাখায় টাকা উত্তোলন বা টাকা প্রয়োজনে জমা করার সুযোগ।
  • একাউন্ট এর বিপরীতে প্রথম বছর ডেবিট কার্ড একদম ফ্রি।
  • যৌথ ব্যক্তির নামে একাউন্ট ওপেন করা সম্ভব।

এছাড়াও অনেক সুবিধা আছে যেগুলো ডাচ বাংলার সেভিংস একাউন্টে পাওয়া সম্ভব। ডাচ বাংলা সেভিংস অ্যাকাউন্ট প্রধানত দুই ধরনের হয়ে থাকে। সেভিংস ডিপোজিট একাউন্ট জেনারেল এবং সেভিংস প্লাস ডিপোজিট একাউন্ট।

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ

ব্যাংকিং খাতে অনেক গ্রাহকই অর্থ জমা করার ক্ষেত্রে ডান্স বাংলা ব্যাংকের সেভিংস একাউন্ট পছন্দ করে থাকেন। কেননা খুব অল্প সার্ভিস চার্জ এ ডাচ বাংলা ব্যাংক গ্রাহকের মাঝে দারুন কিছু সেবা প্রদান করে থাকেন। ডাচ বাংলা সেভিংস অ্যাকাউন্টে ১০০০০ টাকা পর্যন্ত বাৎসরিক কোন চার্জ দেয়ার প্রয়োজন হয় না। ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ৬ মাসে ১০০ টাকা চার্জ প্রদান করতে হয়। ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ছয় মাসে ২০০ টাকা প্রদান করতে হয়। ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ২৫০ টাকা চার্জ কাটা হয়। এবং ১০ লক্ষ টাকার উপরে যেকোনো অ্যামাউন্টে টাকা রাখলে সার্ভিস চার্জ হিসেবে ৩০০ টাকা করে কাটা হবে। এবং কোন কারনে আপনি যদি একাউন্ট বন্ধ করতে চান তাহলে ২০০ টাকা সার্ভিস চার্জ কাটা হবে।

Related Articles

ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে?

শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি কিংবা বিভিন্ন প্রয়োজনে ব্যাংক একাউন্ট খোলার প্রয়োজন পড়ে। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ডাচ-বাংলা ব্যাংককেই বেছে নেন। ডান্স বাংলা ব্যাংকে স্টুডেন্ট একাউন্ট খোলার জন্য যে সকল কাগজপত্র প্রয়োজন- সদ্য তোলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি। আপনার সর্বশেষ স্কুলের বেতন স্লিপ। তবে অনার্স পড়ুয়া হলে স্টুডেন্ট একাউন্ট তৈরি করা যাবেনা। একজন নমিনির প্রয়োজন। নমিনির এক কপি ছবি এবং জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি। সনাক্তকরণের ক্ষেত্রে একজন ব্যক্তি প্রয়োজন। সনাক্তকারীর এক কপি ছবি এবং জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি। ১০০ কিংবা ৫০০ টাকা ব্যাংকে জমা রাখতে হবে।

অনলাইনে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

অফলাইন এবং অনলাইন দুই ভাবেই ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলা যায়। তবে ব্যাংকে গিয়ে লাইনে দাঁড়ানোর ভয়ে বেশিরভাগ গ্রাহকই ঘরে বসে অনলাইনে অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম জানতে চান। আপনাদের সুবিধার জন্য অনলাইনে ডাচ-বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম তুলে ধরলাম। একজন গ্রাহক চাইলে অ্যাপস এর মাধ্যমে এবং ইন্টারনেট এর মাধ্যমে অনলাইনে ব্যাংক একাউন্ট খুলতে পারবেন।

অ্যাপসের মাধ্যমে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম: অ্যাপসের মাধ্যমে ডান্স বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে nexuspay নামক এক ধরনের অ্যাপ ডাউনলোড করে ইন্সটল করতে হবে। সেখানে নির্দেশনা মোতাবে ক ব্যাংক স্টেটমেন্টের যাবতীয় তথ্য দিয়ে একাউন্ট খুলে ফেলা যাবে সহজেই। অ্যাকাউন্ট খোলা সম্পন্ন হয়ে গেলে পরবর্তীতে ব্যাংক নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে সহজেই একাউন্ট ব্যালেন্স চেক সহ অর্থ লেনদেন করতে পারবেন।

ব্রাউজারের মাধ্যমে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম: আপনার হাতে যদি একটি স্মার্ট ফোন থাকে এবং ডাটা কানেকশন থাকে তাহলে আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে ডাচ-বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খুলতে পারবেন। এজন্য উপরে উল্লিখিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাথে নিয়ে আপনাকে নিম্নোক্ত নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। মোবাইলের ব্রাউজারে গিয়ে  এই লিংকে প্রবেশ করতে হবে। সেখানে রেজিস্ট্রেশন ফর্ম ওপেন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন ফরমে যে সকল তথ্য চাওয়া হবে তা যথাযথভাবে পূরণ করলে আপনার ফোনে একটি OTP পাঠানো হবে। কোডটি মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার আগেই যথাযথভাবে পূরণ করে একাউন্ট খোলা সম্পন্ন করতে হবে। আপনার দেয়া ইনফরমেশনগুলো সঠিক হলে আপনার নামে একটি ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট তৈরি হয়ে যাবে।

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট ব্যালেন্স চেক করার উপায়

আপনি যদি ডাচ বাংলা ব্যাংকের একজন গ্রাহক হয়ে থাকেন তাহলে আপনার একাউন্টে ব্যালেন্স চেক করার জন্য আপনাকে নেক্সাস পে নামক অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। নেক্সাস পে অ্যাপে আপনাকে সাইন ইন করে সেখান থেকে বিভিন্ন ফিচার গুলো ব্যবহার করে আপনি সুবিধা পেতে পারেন। এছাড়া আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের ওয়েব সাইটে গিয়েও সরাসরি আপনার অ্যাকাউন্ট নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে সহজেই ব্যালেন্স চেক এবং অন্যান্য সুবিধা গুলো গ্রহণ করতে পারেন।

পরিশেষ: ব্যক্তিগত অর্থ লেনদেনের ক্ষেত্রে কিংবা নিরাপত্তার স্বার্থে বর্তমানে ব্যাংকিং ব্যবস্থা একটি অন্যতম কার্যকর পন্থা হিসেবে বিবেচিত। এজন্য ব্যাংকে একটি ব্যক্তিগত একাউন্ট থাকা আবশ্যক। আপনারা অনেকেই ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট খোলার নিয়ম জানেন না। আপনাদের সুবিধার্থে আমার আজকের অনুচ্ছেদে অনলাইনে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম তুলে ধরলাম। আশা করি লেখাটি আপনাদের উপকারে আসবে। লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যদের জানানোর সুযোগ করে দিবেন। বিভিন্ন তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইট ঘুরে দেখার আমন্ত্রণ রইল। আপনার জন্য রইল শুভকামনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *