টিপস

অনলাইনে সোনালি ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম (অ্যাপ, ওয়েবসাইট)

সম্মানিত সুধী, আমার শুভেচ্ছা নিবেন। আপনি কি সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন? অনলাইনে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম খুঁজছেন? তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। আমার আজকের অনুচ্ছেদে অনলাইনে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। সোনালী ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার বিভিন্ন তথ্য জানতে আমার সম্পূর্ণ লেখাটি মনোযোগ সহকারে পাঠ করুন।

সোনালী ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট সুবিধা

একজন শিক্ষার্থী বিশেষ প্রয়োজনে স্টুডেন্ট সেভিংস একাউন্ট খুলে থাকেন। সোনালী ব্যাংক স্টুডেন্ট সেভিং একাউন্টের ক্ষেত্রে দারুন কিছু সুবিধা প্রদান করে থাকে। এজন্য শিক্ষার্থীগণ সেভিংস একাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে সোনালী ব্যাংকেই বেছে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করে থাকে। সোনালী ব্যাংক স্টুডেন্ট সেভিংস একাউন্ট এর সুবিধাসমূহ: বাৎসরিক কোনো মেনটেনেন্স ফ্রী প্রয়োজন নেই। যে ব্যক্তি মাত্র ২০০ টাকা একাউন্টে রেখে বাকি সব টাকা উত্তোলন করা যায়। এটিএম কার্ড পাওয়ার সুবিধা রয়েছে, সেক্ষেত্রে বাৎসরিক ফ্রি মাত্র ২৩০ টাকা। এসএমএস ব্যাংকিং সুবিধা রয়েছে যার বাৎসরিক ফি মাত্র ১১৬ টাকা।

শিক্ষার্থীগণ ই-ওয়ালেট ব্যবহার করতে পারবেন যার মাধ্যমে ব্যালেন্স চেক, স্টেটমেন্ট দেখা, ফান্ড ট্রান্সফার, beftn সুবিধা সহ অনেক সুবিধা বিনামূল্যে পাওয়া যায়। বিকাশের সাথে লিঙ্ক অ্যাকাউন্ট স্থাপনের সুযোগ রয়েছে। লিংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে হাজারে ১০ টাকায় বিকাশ থেকে একাউন্টে এবং সম্পূর্ণ ফ্রিতে একাউন্ট থেকে বিকাশে টাকা ট্রান্সফার করা যায়। ১৮ থেকে ২৩ বছর বয়সী যে কোন ছাত্র স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ

ব্যাংকের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের ব্যয় ভার বহন করার ক্ষেত্রে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের কাছ থেকে কিছু অর্থ চার্জ হিসেবে গ্রহণ করে থাকে। সোনালী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলা এবং মেনটেনেন্স এর ক্ষেত্রে কিছু চার্জ গ্রহণ করা হয়ে থাকে। একজন সোনালী ব্যাংক গ্রাহক হিসেবে আপনাকে প্রতিবছরে ছয় মাস অন্তর দুইবার একাউন্ট চার্জ প্রদান করতে হবে। তবে ১০ হাজার টাকার নিচে ব্যালেন্স হলে আপনাকে কোন রকম চার্জ প্রদান করতে হবে না। টাকার পরিমান বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে অ্যাকাউন্ট মেনটেনেন্স এর চার্জ বৃদ্ধি পেতে থাকবে। ১০ লক্ষ টাকার অধিক গড় আমানত স্থিতির জন্য ৩০০ টাকা+ভ্যাট প্রদান করতে হবে। আপনি যদি এসএমএসের মাধ্যমে ব্যাংকিং সুবিধা গ্রহণ করতে চান তাহলে আপনাকে এসএমএস চার্জ বাবদ প্রতিবছর ৬ মাস অন্তর দুইবার ৫০+৮ টাকা প্রদান করতে হবে।

Related Articles

সোনালী ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম

অন্যান্য ব্যাংকের মতো সোনালী ব্যাংকেও অফলাইনে এবং অনলাইনে দুই পদ্ধতিতে ব্যাংক একাউন্ট খোলার সুবিধা রয়েছে। অফলাইনে ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম: আপনি যদি সোনালী ব্যাংকে সেভিংস একাউন্ট তৈরি করতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সাথে নিয়ে নিকটস্থ শাখায় চলে যেতে হবে। যে ডকুমেন্টস লাগবে-

  • যে ব্যক্তি একাউন্ট তৈরি করবে এবং যাকে নমিনি হিসেবে নির্বাচন করা হবে তাদের প্রত্যেকেরই জাতীয় পরিচয় পত্র,
  • ড্রাইভিং লাইসেন্স কিংবা জন্ম নিবন্ধন সনদের কপি।
  • নমিনি এবং অ্যাকাউন্ট তৈরি কৃত ব্যক্তির সদ্য তোলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি।
  • একাউন্ট খুলতে আগ্রহী ব্যক্তির আয়ের উৎস সম্পর্কে ধারণা সম্পর্কিত নথি।

উপরোক্ত কাগজপত্র সাথে নিয়ে সোনালী ব্যাংকের নিকটস্থ শাখায় গিয়ে সহজেই ফরম পূরণ করে একাউন্ট খুলতে পারবেন। অনলাইনে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম: ব্যক্তিগত কর্মব্যস্ততার কারণে অনেকেই ঘরে বসে ব্যাংক একাউন্ট খোলার প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করে থাকেন। গ্রাহকের সুবিধার জন্যই সোনালী ব্যাংক অনলাইন এর মাধ্যমে একাউন্ট খোলার সুবিধা প্রদান করে থাকে।

এখন থেকে আপনি চাইলে ঘরে বসেই সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খুলতে পারবেন। এজন্য আপনাকে “সোনালী ই-সেবা” সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে। অনলাইনে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার ধাপসমূহ:

  • স্মার্ট ফোন জাতীয় পরিচয় পত্র বা জন্মনিবন্ধন সার্টিফিকেটের মূল কপি সাথে নিয়ে ঘরে বসেই সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের একাউন্ট খুলতে হবে। এজন্য গুগল প্লে স্টোর থেকে সোনালী ই-সেবা নামক অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড ও ইন্সটল করে নিতে হবে।
  • ইন্টারনেট কানেকশন সংযুক্ত করে অ্যাপটি ওপেন করতে হবে এবং “ব্যাংক একাউন্ট খুলুন” বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • গ্রাহকের নিবন্ধিত ১১ ডিজিট এর মোবাইল নাম্বার লিখতে হবে এবং সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • আপনার প্রদত্ত মোবাইল নম্বরে ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
  • অতঃপর মোবাইলে প্রদত্ত ছয় সংখ্যার ওটিপিটি সাবমিট করতে হবে।
  • অতঃপর মোবাইলের ক্যামেরা ব্যবহার করে নিজের সেলফি তুলতে হবে।
  • এরপর জন্ম তারিখ, এনআইডি নম্বর ঘরে জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর প্রবেশ করিয়ে তথ্য যাচাই করুন বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধন সনদ সফলভাবে যাচাই সম্পন্ন হলে আপনার বর্তমান ঠিকানা ও স্বামী বা স্ত্রীর নাম লিখে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • ক্যামেরা আইকনে ক্লিক করে মোবাইলের ক্যামেরা ব্যবহার করে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের সম্মুখ অংশের ছবি এবং পিছনের অংশের ছবি তুলে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • অতঃপর আপনার প্রধান কৃত বর্তমান ঠিকানার উপর ভিত্তি করে নিকটস্থ শাখা সমূহ প্রদর্শিত হবে এবং সেখান থেকে আপনার পছন্দসই শাখা নির্বাচন করতে হবে।
  • সেখানে আপনার নমিনির তথ্য প্রদান করে অ্যাকাউন্ট খুলুন বাটনে ক্লিক করতে হবে।

সফলভাবে একাউন্টটি খোলা হলে অ্যাকাউন্ট নম্বর সহ একটি মেসেজ আসবে যা আপনাকে সংরক্ষণ করতে হবে। অনূর্ধ্ব তিন মাস এর মধ্যে নির্বাচিত শাখায় গিয়ে স্বাক্ষর ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করতে হবে।

সোনালী ব্যাংক চলতি হিসাব

বিশেষ প্রয়োজনে কিংবা ব্যক্তিগত নিরাপত্তা স্বার্থে অর্থ আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে অধিকাংশ গ্রাহকগণ সোনালী ব্যাংক চলতি হিসাব বা সোনালী ব্যাংক কারেন্ট একাউন্ট ব্যবহার করে থাকেন। কারেন্ট অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে একজন গ্রাহক যখন তখন টাকা জমা প্রদান এবং উত্তোলন করতে পারেন। এতে করে বার্ষিক দুই কিস্তিতে সামান্য পরিমাণ সার্ভিস চার্জ প্রদান করতে হয়। এজন্য আপনাকে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে নিতে হবে।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট ট্রান্সফার করার নিয়ম

আপনি যদি সোনালী ব্যাংকের একজন গ্রাহক হয়ে থাকেন এবং আপনার বিশেষ প্রয়োজনে একাউন্ট ট্রান্সফার করার প্রয়োজন পড়ে থাকে তাহলে আপনার জন্য আমার আজকের এই অনুচ্ছেদ। ব্যাংক একাউন্ট ট্রান্সফার করার জন্য আপনাকে যা যা করতে হবে- দরখাস্ত লিখতে হবে। ডকুমেন্ট সমূহ জমা দিতে হবে। প্রয়োজনে ম্যানেজারের সাথে কথা বলার প্রয়োজন হতে পারে। কাঙ্খিত শাখায় যোগাযোগ করতে হবে। মনে রাখতে হবে ব্যাংক একাউন্ট ট্রান্সফার করার জন্য ম্যানেজার বরাবর একটি দরখাস্ত প্রদান করতে হবে।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট চেক করার নিয়ম

আপনি যদি সোনালী ব্যাংকের একজন গ্রাহক হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার ব্যাংক একাউন্ট টি মাঝে মাঝে চেক করার প্রয়োজন পড়বে। এই কাজটি আপনি ঘরে বসেই খুব সহজে অনলাইনের মাধ্যমে করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে সোনালী ব্যাংকের নিজস্ব মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনাকে Sonali bank e wallet ব্যবহার করতে হবে।

পরিশেষ: ব্যাংক একাউন্ট অর্থ লেনেদেনের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে ভূমিকা পালন করে থাকে। মানুষ ব্যাক্তিগত নিরাপত্তার স্বার্থেই ব্যাংকের মাধ্যমে অর্থ লেনদেন করে থাকে। এক্ষেত্রে সরকারি ব্যাংক হিসেবে সোনালি ব্যাংকই প্রথম পছন্দে চলে আসে। সোনালি ব্যাংক একাউন্ট খোলার প্রয়োজনীয় তথ্য নিয়েই আমার আজকের এই নিবন্ধ। আশাকরি, লেখাটি আপনার উপকারে আসবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *