ট্রেনের সময়সূচিভ্রমণ

ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী টিকিট ও ভাড়ার তালিকা ২০২৪

ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী টিকিট ও ভাড়ার তালিকা. আপনি কিভাবে  নিরাপদ ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা ভ্রমণ করবেন তা নিয়ে ভাবতেছেন? বাংলাদেশ সরকারের রেলওয়ে মন্ত্রণালয় কর্তৃক ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা গামী বেশ কয়েকটি ট্রেন প্রতিনিয়ত চলাচল করে। এসকল ট্রেন ভ্রমণের জন্য উপযোগী ও আরামদায়ক। আজকের এই পোস্টটিতে ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী টিকিট ভাড়া তালিকা নিয়ে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়েছে এই অনুচ্ছেদে।

ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা গামী ট্রেনগুলো ভ্রমণের জন্য নিরাপদ আরামদায়ক ও বিলাসবহুল। বিষয়টি থেকে ঢাকা গামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস, সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস, দ্রুতযান এক্সপ্রেস, পদ্মা এক্সপ্রেস, চিত্রা এক্সপ্রেস ও বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেন গুলোর প্রতিনিয়ত ভ্রমণ সেবা দিয়ে আসছে। এ সকল দ্রুতগামী ট্রেনগুলো আপনাকে নির্দিষ্ট সময়ে আপনার গন্তব্য স্থানে পৌঁছে দেয় । এ সকল ট্রেনের আসন ব্যবস্থা উন্নত এবং ট্রেনের স্যানিটেশন ব্যবস্থা থেকে শুরু করে যাবতীয় কাঠামো ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা বেশ উন্নত এবং শৃংখল।

ঈশ্বরদী হল বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গের সবথেকে বড় রেল জংশন এবং উত্তরবঙ্গের অধিকাংশ ট্রেন গুলো প্রায় ঈশ্বরদী স্টেশন দিয়ে অতিক্রম করে। ঈশ্বরদী রেল জংশন থেকে প্রতিনিয়ত অনেকগুলো ট্রেন ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। ঈশ্বরদী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঢাকাগামী ট্রেনগুলো একটার পর একটা প্রতিনিয়ত চলছে এখানে আপনি আপনার সময় অনুপাতে ই ঢাকার উদ্দেশ্যে ভ্রমণ করতে পারবেন।

আমাদের এই ওয়েবসাইটে আপনাদের আজকে এই অনুচ্ছেদে ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা গামী ট্রেনের সময়সূচী ভাড়ার তালিকা এবং টিকিট ক্রয় করার সম্পূর্ণ বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করা হয়েছে আপনারা মনোযোগ সহকারে আমাদের এই অনুচ্ছেদ পড়বেন।

Related Articles

ঈশ্বরদী টু ঢাকা ট্রেনের সময়সূচি ২০২৪

উত্তরবঙ্গের সর্ববৃহৎ রেলওয়ে স্টেশন ঈশ্বরদী রেল জংশন। ঈশ্বরদী থেকে আমরা সুন্দরবন এক্সপ্রেস, সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস, দ্রুতযান এক্সপ্রেস, পদ্মা এক্সপ্রেস, চিত্রা এক্সপ্রেস, বেনাপোল এক্সপ্রেস ঢাকার উদ্দেশ্যে গমন করতে পারি। এ সকল ট্রেন নির্দিষ্ট সময়ে ঈশ্বরদীর রেলওয়ে স্টেশনে থেকে যাত্রা শুরু করে ঢাকার উদ্দেশ্যে গমন করে। আপনাকে এই সকল ট্রেনে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট গন্তব্য স্থানে পৌঁছে দিবে। ঈশ্বরদী রেল জংশন থেকে সুন্দরবন এক্সপ্রেস ছাড়ার সময় হল দুপুর ২:১৫ মিনিটে শিশুটি রেল জংশন থেকে ছাড়ে এবং ঢাকায় পৌঁছায় সন্ধ্যা সাতটায়। সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস ঈশ্বরদী স্টেশন থেকে ছাড়ার সময় হল ৮:৩০ মিনিটে এবং এই ট্রেনটি ঢাকায় পৌঁছায় ১০:৩০ মিনিটে।দ্রুতযান এক্সপ্রেস ঈশ্বরদী রেল জংশন থেকে ছাড়ে ২টায় ৩৭ মিনিটে দুপুর এবং ঢাকায় স্টেশনে পৌঁছায় নিতাই তো সময় হলো ৬টাই ৫৫ মিনিটে।

এই ট্রেনগুলো নির্দিষ্ট সময় ঈশ্বরদী রেল জং শুনে এসে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে আপনার সময় নিরাপদ হিসেবে এই সকল ট্রেন অত্যন্ত উপযোগী এবং ট্রেন ভ্রমণে অত্যন্ত আরামদায়ক ও নির্ভরযোগ্য। এই অনুচ্ছেদে ঈশ্বরদী থেকে ঢাকা গামী সকল ট্রেনের সময়সূচি তালিকা নিচে দেওয়া হলো।

ঢাকা টু ঈশ্বরদী ট্রেনের সময়সূচী 

ট্রেনের নাম ছুটির দিন ছাড়ায় সময় পৌছানোর সময়
সুন্দরবন এক্সপ্রেস (৭২৬) বুধবার ০৮ঃ১৫ ১৩ঃ০০
চিত্রা এক্সপ্রেস (৭৬৪) সোমবার ১৯ঃ০০ ২৩ঃ১৫
খুলনা টু ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী
খুলনা টু ঢাকা ট্রেনের সময়সূচী

ঈশ্বরদী টু ঢাকা ট্রেনের ভাড়ার তালিকা ২০২৪

ঈশ্বরদী থেকে প্রতিনিয়ত সুন্দরবন এক্সপ্রেস চিত্রা এক্সপ্রেস দ্রুতযান এক্সপ্রেস পদ্মা এক্সপ্রেস বেনাপোল এক্সপ্রেস এবং সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস চলাচল করে। এ সকল ট্রেনের আসন ক্যাটাগরি অনুসারে তাদের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। এ সকল ট্রেনের আসল ব্যবস্থায় এসি নন এসি এবং স্নিগ্ধা এসি কেবিন প্রভৃতি সংযুক্ত করা হয়েছে। আসুন ক্যাটাগরি অনুসারে টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। ট্রেনগুলোর গঠন কাঠাম ো অনেক উন্নত এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ট্রেনগুলোতে নামাজ ঘর সহ খাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। ট্রেনগুলোর আসন ব্যবস্থায় শোভন, শোভন চেয়ার, প্রথম সিট,,  প্রথম বার্থ স্নিগ্ধ া এসি সিট,  প্রভৃতি ক্যাটাগরি সংযুক্ত আছে। এই অনুচ্ছেদে নিচে এসব আসনের টিকিট মূল্য তালিকা শেয়ার করা হয়েছে।

আসন বিভাগ টিকেটের মূল্য (১৫%ভ্যাট)
শোভন ২৪৫ টাকা
শোভন চেয়ার ২৯৫ টাকা
প্রথম সিট ৩৯০ টাকা
প্রথম বার্থ ৫৮৫ টাকা
স্নিগ্ধা ৪৯০ টাকা
এসি সিট ৫৮৫ টাকা
এসি বার্থ ৮৮০ টাকা

 অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয়ের নিয়ম ২০২৪

এখন আর ভাবনা নেই আপনি ঘরে বসে ই আপনার গন্তব্য স্থানে যাওয়ার জন্য টিকিট ক্রয় করতে পারেন। অনলাইনে আপনি ট্রেনের টিকিট করে রাখতে পারবেন। ট্রেনের টিকিট করার ক্রয় করার জন্য আপনাকে বাংলাদেশ রেলওয়ে মন্ত্রণালয় কর্তৃক ই টিকিট ছাড়া ওয়েবসাইটে eticket.railway.gov.bd প্রবেশ করে আপনার নিবন্ধন সম্পূর্ণ করে আপনার একাউন্টের মাধ্যমে আপনার পছন্দের ট্রেনের টিকিট ক্রয় করে ভ্রমণ করতে পারবেন আপনার নির্দিষ্ট গন্তব্য স্থানে। ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য বাংলাদেশ সময় সকাল আটটা 30 মিনিট নির্ধারণ করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যেই আপনি আপনার গন্তব্য স্থানে পৌঁছানোর জন্য অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। নিচে অনলাইনে টিকিট ক্রয় করার নিয়ম তথ্য শেয়ার করা হয়েছে।

আমাদের এই অনুচ্ছেদটি ধৈর্য সহকারে পড়ার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। আমাদের এই ওয়েবসাইটটিতে নিত্যনতুন বিষয় নিয়ে পোস্ট করা হয় আপনাদের এসব পোস্টগুলো পড়ার জন্য স্বাগতম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *