টিপস

ঘরে বসেই মিলবে ড্রাইভিং লাইসেন্স

ঘরে বসেই মিলবে ড্রাইভিং লাইসেন্স । সুপ্রিয় পাঠক, বৃন্দ আজকের আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি এটি নতুন খবর। এবছর থেকে শুরু হতে চলেছে ঘরে বসেই ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার নতুন নিয়ম। এখন আর আগের মত বিআরটিসি কার্যালয় গিয়ে আপনাদের ধন্না  না দিয়ে ঘরে বসেই পাবেন ড্রাইভিং লাইসেন্স। ঘরে বসেই আপনি আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স ডাক বিভাগের মাধ্যমে সংগ্রহ করতে পারবেন।

এই সেবার নিশ্চিত করতে বিআরটিসি কার্যালয় থেকে শীঘ্রই জানানো হয়েছে এখন বিআরটিসি অফিসে লোক সংখ্যা কমিয়ে দ্রুত ড্রাইভিং লাইসেন্স সেবা দেওয়ার জন্য ঘরে বসে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য সেবা প্রদান করবে। আগামী ডিসেম্বরের প্রথম দিক থেকে শুরু হবে বলে জানিয়েছে বিআরটিসি অফিস কতৃপক্ষ ।

এই খবরের সাথে বিআরটিসি অফিসে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার নতুন নিয়ম যোগ হয়েছে। এখন খুব দ্রুত ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য আগের দীর্ঘ প্রক্রিয়া বাতিল করে নতুন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করা হবে। এতে গ্রাহক রা খুব কম সময়ের মধ্যে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবে। ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার প্রক্রিয়ায় এখন স্বচ্ছ এবং দালালের চক্রে পড়তে হবে না। তাই বিআরটিসি অফিস কর্তৃক এই নতুন নিয়ম ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার সকলের জন্য উপকৃত।

ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার নতুন নিয়ম

ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে বিআরটিসি অফিসে আগে অনেক ভিড় হত। ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রক্রিয়াটি এটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া। পাওয়ার জন্য আবেদন করে গ্রাহককে সর্বপ্রথম শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স অতিক্রম করতে হয়। শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য গ্রাহককে একদিন বিআরটিসিতে আসতে হবে এবং পরবর্তীতে পরীক্ষা দিতে আরও একদিন আসার দরকার হয়। তারপর পরীক্ষায় পাস করলে আঙুলে চাপ দেওয়ার জন্য বিআরটিসি অফিসে আরেক দিন আসতে হবে। এরপরে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হবে এবং পরবর্তীতে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য আরেকদিন বিআরটিসি অফিসে যোগাযোগ করতে হবে। এ নিয়ে মোট পাঁচ থেকে সাত দিন একজন গ্রাহকে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য বিআরটিসি অফিসে যোগাযোগ করতে হয়। এতেই হয়তো অনেকেই দালালের চক্রে পড়ে যায়। বিআরটিসি অফিসের সামনে থাকে দালাল চক্রের আরেক ধরনের বুঁদ।

Related Articles

তবে বর্তমানে খুশির সংবাদ হলো এই যে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য যুগ যুগ ধরে এই ভোগান্তি কমিয়ে বিআরটিসি নতুন নিয়মে ২০২৩ সালে ডিসেম্বর মাস থেকে শুরু করতে চাচ্ছে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য গ্রাহক সুবিধা। ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে আগের মত ভোগান্তি ভুগতে হবে না। এখন খুব সহজেই এই নিয়মের মধ্যে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়া যাবে। ২০২৩ সালের ডিসেম্বরের থেকে পরিচালিত নতুন নিয়ম অনুযায়ী ড্রাইভিং লাইসেন্স আবেদন করার জন্য এক দিনেই আসতে হবে গ্রাহককে।

লাইসেন্সের জন্য গ্রাহক একদিনেই বিআরটিসি অফিসে এসে আবেদনের সকল যাবতীয় কার্যক্রম করতে পারবে । আবেদনের দিনে গ্রাহককে ফিঙ্গারপ্রিন্ট পরীক্ষা এবং প্রাকটিক্যাল পরীক্ষা সহ ড্রাইভিং লাইসেন্সের যাবতীয় সকল কার্যকলাপ শেষ করতে পারবে। সেই দিনে ই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ব্যক্তিকে ২৪ ঘন্টার মাধ্যমে এসএমএস দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে কিনা। ড্রাইভিং লাইসেন্স করার সময় অবশ্যই গ্রাহককে তার জাতীয় পরিচয় পত্র সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ব্যক্তি এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে তা ড্রাইভিং লাইসেন্স পড়তে সম্পূর্ণ হয়েছে। একদিন এই গ্রাহক এখন ড্রাইভিং লাইসেন্স এর সকল প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার যোগ্যতা রাখবে। যে সকল ব্যক্তি এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে কেবলমাত্র তারাই ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবে। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারবে না পরবর্তীতে আবার নতুন আবেদন করে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। পরবর্তীতে গ্রাহককে ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করার জন্য আর বিআরটিসি অফিসে আসতে হবে না। বিআরটিসি অফিস থেকে ই উক্ত দিনে ই গ্রাহকের সকল তথ্য সঠিকভাবে সংগ্রহ করে ডাক বিভাগের মাধ্যমে অথবা কুরিয়ারের মাধ্যমে গ্রাহককে ড্রাইভিং লাইসেন্স থানা কিংবা ডাকঘরে পাঠিয়ে দিবে। এতে কুরিয়ার সার্ভিসের টাকা প্রদান করতে হবে।

এই সংবাদটি নিশ্চিত করেছে বিআরটিসি অফিসের চেয়ারম্যান মহোদয়। তিনি সংবাদ সম্মেলন করে নতুন নিয়মের এই খুশির সংবাদ সকলের কাছে প্রচার করেছেন। সকল ভোগান্তি শেষ করে ডিসেম্বর থেকেই চালু হতে চলছে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর নতুন নিয়ম। গ্রাহক কি এখন আর আগের মত ভোগান্তি না ভোগে ঘরে বসেই তাদের ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করতে পারবে।

পরিশেষে
আজকের এই খুশির সংবাদ সকলের জন্য মঙ্গল করুক। কারণ ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি ড্রাইভ করা আইনগত দণ্ডনীয় অপরাধ। তাই বিআরটিসি অফিসে নতুন এই নিয়মে খুব দ্রুত ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করা যাবে। গ্রাহককে এখন আর আগের মতো ভোগান্তি ভুগতে হবে না। দালাল চক্র হাতে এখন আর গ্রাহককে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য ভুগতে হবে না। এই প্রক্রিয়া খুব তাড়াতাড়ি শুরু হতে চলুক এই আশা ব্যক্ত করি আজকের অনুচ্ছেদ এখানেই শেষ করলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *