স্ট্যাটাস

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস কবে, ইতিহাস, স্ট্যাটাস, উক্তি, শুভেচ্ছা, ক্যাপশন, রচনা

সম্মানিত সুধী ,আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সকলে ভালো আছেন আজকের এই নিবন্ধে ১৯৫০সালে ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের সংবিধান কার্যকর করা হয় সেই থেকেই ২৬ শে জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবস পালন শুরু হয়। আজকের এই নিবন্ধে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে এবং প্রজাতন্ত্র দিবসে স্ট্যাটাস ক্যাপশন উক্তি এসএমএস ইত্যাদি শেয়ার করা হয়েছে।

১৯৪৭ সালে ১৫ আগস্ট ভারত স্বাধীনতা লাভ করলে ভারতের সংবিধান রচনা করা হয় 1950 সালের 26 শে জানুয়ারি। ১৯৫০ সালের ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের সংবিধান কার্যকর করা হয় তখন থেকেই এই দিনটিকে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এই নিবন্ধে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের ইতিহাস এই দিনে ক্যাপশন স্ট্যাটাস উক্তি বাণী শেয়ার করা হয়েছে।

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের ইতিহাস

১৯৪৭ সালের ১৫ ই আগস্ট ভারত স্বাধীনতা আন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা লাভ করেছিল। স্বাধীনতা আন্দোলনে মহাত্মা গান্ধী নেতৃত্বে পরিচালিত হয়েছিল শান্তিপূর্ণ অংশ অসহযোগ আন্দোলন ও আইন অমান্য আন্দোলন। এই আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে ব্রিটিশ ভারত ভেঙ্গে গিয়ে দুটি স্বাধীন রাষ্ট্র ভারত ও পাকিস্তান জন্ম নেয়। ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা লাভের প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ন যুক্তরাজ্যের সংসদে ভারতের স্বাধীনতা আইন পাস করা হয়েছিল। ব্রিটিশ শাসন ভেঙ্গে গিয়ে ভারতের স্বাধীনতা লাভ করলেও তখনও শাসনভার দেওয়া ছিল ষষ্ঠ জর্জ এবং লট মাউন্টব্যাটেন কাছে। স্বাধীনতা লাভ করলেও দেশটির তখন স্থায়ী কোন সংবিধান ছিল না। তাই স্বাধীনতা লাভের দুদিন পরে১৯৪৭সালের ২৮আগস্ট স্থায়ী সংবিধান রচনার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়। চেয়ারম্যান ছিলেন ভীমরাও রামজি আম্বাডেকর।

১৯৪৭ সালে ৪ই নভেম্বর একটি কমিটি গঠন করে খোসলা সংবিধান প্রস্তুত করে গণপরিষদের জমা দেওয়া হয়। এই সংবিধান রচনার জন্য চূড়ান্তভাবে দুই বছর ১১ মাস ১৮ দিন সময় লাগে। এই সময়ের মধ্যে খোসা সংবিধানের আলোচনার জন্য ১৬৬ বার সংবিধানের জন্য অধিবেশন ডাক দেয়া হয়। সেইসব অধিবেশনে জনসাধারণের প্রবেশের অধিকার ছিল। ১৯৩০ সালের ২৬ শে জানুয়ারি প্রথম স্বাধীনতা দিবস পালনের দিনটিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ১৯৪৯সালে ২৬শে নভেম্বর ভারতের সংবিধান গৃহীত হয়ে ১৯৫০ সালের ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের সংবিধানটি কার্যকর করা হয়।

Related Articles
ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস
ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস

১৯৫০ সালে ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের সংবিধান কার্যকর করে সেইদিন থেকে প্রজাতান্ত্রিক ভারত বর্ষ বা রিপাবলিক অফ ইন্ডিয়া হিসেবে পরিচিতি লাভ করে ভারত বর্ষ। ভারতের সংবিধান প্রণয়নের এই দিনটি নানা উৎসব উদযাপনের মধ্যে দিয়ে পালন করা হয়। এই দিনে ভারতের রাজধানীর নতুন দিল্লিতে কুচকাওয়াজ হয়। রাষ্ট্রপতির বাসভবন থেকে দিল্লির গেট পর্যন্ত কুচকাওয়াজ করা হয় এবং এই দিনে দিল্লি গেটে অবস্থিত শহীদ স্মারকে পুষ্পস্তক অর্পণ করা হয়।ভারতের এই প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রত্যেক বছরই কোন না কোন দেশের রাষ্ট্রপতি বা প্রধানমন্ত্রী উদযাপনের এই দিনে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে আসে। ১৯৫০ সালে প্রথম অতিথি হিসেবে আসে ইন্দোনেশিয়া রাষ্ট্রপতি সুকর্ণ এর পরবর্তীতে আসে রাজা ত্রিভুবন বীর বিক্রম শাহ নেপাল থেকে। ২০১৮ সালে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে সম্মানিত অতিথি হয়ে আসে প্রধানমন্ত্রী হুন  সেন কম্বোডিয়া থেকে ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি জোকো উইদোদো ও আরো কয়েকটি দেশ থেকে রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীরা উদযাপনের এই দিনে সম্মানিত অতিথি হয়ে আসে।

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস কবে ?

১৯৪৭ সালের ১৫ই আগস্ট ভারত স্বাধীনতা লাভ করার পর ভারতের সংবিধান রচনার ১৯৪৭ সালে ২৮ আগস্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। ১৬৬ টি অধিবেশন করে দুই বছর ১১ মাস ২৮ দিন সময় লাগে ভারতের সংবিধান রচনার জন্য। এই সংবিধান গৃহীত হয় ১৯৪৯ সালের ২৬ শে নভেম্বর। সংবিধানটি কার্যকর করা হয় ১৯৫০সালের ২৬ শে জানুয়ারি। ১৯৫০ সালের ২৬ শে জানুয়ারি কি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এই দিনটি সারাদিন দেশে নানা উৎসব ও আয়োজনের মধ্যে দিয়ে পালন করা হয়। শহীদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয় শহীদ মিনারে।

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস

ভারতের স্বাধীনতা অর্জন করার পর ভারতের সংবিধান প্রণয়ন করা হয়। ১৯৪৭ সালের ১৫ই আগস্ট ভারত স্বাধীনতা অর্জন করার পর 1950 সালে 26 শে জানুয়ারি ভারতের সংবিধান কার্যকর হয়। তাই ২৬শে জানুয়ারি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস হিসাবে সারাদেশে নানা উৎসব ও আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হয়। সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নানা উৎসব ও আনন্দের মধ্য দিয়ে এই দিনটি পালন করে। শহীদদের উদ্দেশ্যে পুষ্প স্তাবক অর্পণ করা হয়। তাই এই দিনে শুভেচ্ছা বার্তা জানানোর জন্য বা আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে নানা ধরনের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস শেয়ার করা হয়। আজকের এই অনুচ্ছেদে আপনাদের জন্য কিছু সুন্দর সুন্দর প্রজাতন্ত্র দিবসের স্ট্যাটাস শেয়ার করা হয়েছে। আপনারা চাইলেই এ সকল স্ট্যাটাস শেয়ার করতে পারবেন।

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস
ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস

১। দেশের উন্নতির নামে সাধারণ নাগরিকের হত্যা পাপ (Republic Day Status)। এমন কাজ স্বাধীনতা ও প্রজাতন্ত্রের পরিপন্থী।

২। যারা দেশমাতৃকাকে ভালবাসেন, তাঁরাই দেশের সমালোচনা করেন। এতে খারাপ তো কিছু নেই। বিশ্বের দরবারে নিজের দেশ সর্বোচ্চস্থান লাভ করুক তা সবাই চায়।

৩। ভাল মানুষ হওয়া যতটা প্রয়োজন, ঠিক ততটাই প্রয়োজন প্রকৃত দেশভক্ত হয়ে ওঠা।

৪। দেশের পতাকা শুধুমাত্র একটি কাপড়ের টুকরো নয়, এটি দেশের সাম্যের প্রতীক। দেশের পতাকাকে যদি আমরা সম্মান না দেখাতে পারি তাহলে প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করার কোনও মানে হয় না (Happy Republic Day Wishes)।

৫। হাজার প্রতিকূলতার মধ্যেও যারা দেশকে ভালবাসেন, তাঁরাই প্রকৃত দেশপ্রেমী (Republic Day Status)।

৬। দেশের স্বার্থ এবং স্বাধীনতাকে যাঁরা খর্ব করতে চান, তাঁদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তোলা প্রতিটি দেশবাসীর প্রথম এবং প্রধান কর্তব্য। সেই বিরোধী শক্তি যদি নিজের দেশের সরকারও হয়, তাহলেও লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। কারণ প্রজাতন্ত্রের থেকে মূল্যবান আর কিছু হয় না।

৭। প্রকৃত দেশবাসী সেই, যে সরকারের ভুল সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে। কারণ, যে দেশকে ভালবাসে, তাঁর পক্ষে নিজের দেশের সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তোলা সহজ কাজ নয়।

৮। সরকার যখন ভুল পথে চলে, তখন তাকে ঠিক পথে নিয়ে আসার জন্য লড়াই করাটাই প্রকৃত অর্থে প্রজাতন্ত্র।

৯। দেশের প্রতি সৎ থাকুন। কিন্তু ততদিন সরকারের সমালোচোনা করে যান, যতদিন না শাসক কূল মানুষের স্বার্থে কাজ করছে (Republic Day Status)।

১০। যে দেশের নাগরিক স্বাধীন ভাবে মত প্রকাশ করতে পারেন না, সে দেশ প্রকৃত অর্থে প্রজাতন্ত্রে বিশ্বাসী নয়।

১১ আমরা শান্তিতে বিশ্বাস করি। তাই আশা করি দেশের প্রতিটি মানুষ যেন শান্তিতে বাঁচার সুযোগ পায়। প্রজাতন্ত্র দিবসের  অনেক অভিনন্দন (Republic Day Wishes)।

১২। উদ্যোগ, কল্পনা শক্তি, নিজস্বতা এবং স্বাধীনতা, এই চারটি স্তম্ভের উপরেই দাঁড়িয়ে রয়েছে আমাদের আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ।

১৩। বিপ্লবীদের দিয়ে যাওয়া সবচেয়ে বড় উপহার হল প্রজাতন্ত্র।

১৪। ভারতীয় হিসেবে আমাদের প্রধান কাজ হল অতীতের ভুলগুলো থেকে শিখে নিয়ে দেশের ভবিষ্যতকে আরও উজ্জ্বল করে তোলা। চলুন সেই কাজে ব্রতী হই।

১৫। প্রজাতন্ত্র দিবসে একটা শপথ নেওয়া যাক, আজ থেকে আমরা সবাই মিলে চেষ্টা করবো যাতে আমাদের দেশ সারা বিশ্বের মধ্যে সেরার সেরা তকমা পায়। প্রজাতন্ত্র দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা

১৬। হাতে হাতে মিলিয়ে চলুন প্রতিজ্ঞা করি এই দেশকে যেন আমরা সবুজায়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি। আমাদের দেশ হয়ে উঠুক স্বচ্ছ এবং সুন্দর।

১৭। আশা করি দেশের প্রতিটি কোণায় যেন প্রকৃত অর্থে গনতন্ত্রেও প্রদীপ জ্বলে ওঠে। ৭০ তম প্রজাতন্ত্র দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা (Happy Republic Day Wishes)।

১৮। একজন স্বাধীন মানুষ হল সেই, যে বিনা দ্বিধায় নিজের চিন্তাকে সম্বল করে এগিয়ে যায় নিজের লক্ষ্যের দিকে। তাই প্রকৃত অর্থে স্বাধীন হোন।

১৯। অধিকার ছাড়া মানুষের জীবন মূল্যহীন। চলুন, নিজের গনতান্ত্রিক অধিকারের জন্য আমরা লড়াই চালাই।

২০। বিনা পরিশ্রমে যেমন সাফল্য আসে না, ঠিক সেরকমই রক্ত না ঝরালে আমরা স্বাধীন হতাম না। তাই শত লড়াইয়ের পর পাওয়া এই অধিকারকে সম্মান জানানো আমাদের মূল কর্তব্য।

প্রজাতন্ত্র দিবসের উক্তি

একটি দেশ কিছু নিয়ম নীতি ও একটি নির্দিষ্ট সংবিধানের মধ্যে শাসনভার এবং দেশ-নীতি পরিচিত হয়। তাই দেশকে সুশৃংখল ও উন্নতির পথে অগ্রসর করার জন্য সেই দেশের অবশ্যই সংবিধান রচনা দরকার। ১৯৪৭ সালে ভারত বর্ষ ব্রিটিশ শাসন থেকে মুক্ত হয়ে ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা অর্জন করে। ব্রিটিশ শাসন থেকে রক্ষা পেয়ে দেশপূর্ণ গঠন এবং দেশের উন্নতির জন্য সংবিধান রচনা করেছে ভারতের বুদ্ধিজীবীরা। ১৯৪৭ সালে ২৮ শে আগস্ট ভারতের সংবিধান রচনার জন্য কমিটি গঠন করা হয়। ১৯৪৯ সালে ২৬ শে নভেম্বর ভারতের সংবিধান গৃহীত হয়। এর পরবর্তীতে ১৯৫০ সালে ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের সংবিধান কার্যকর হয়। তখন থেকেই এই সংবিধান অনুযায়ী ভারত তার সার্বভৌমত্ব দেশে শাসনভার ও নির্দিষ্ট নিয়ম নীতি সুশৃংখল ভাবে পরিচালিত করে আসছে। ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করা হয়। এই দিনটি নানা উৎসব ও উদযাপনের মধ্য দিয়ে পালন করে ভারতের জনগণ। ভারত ছাড়া বিভিন্ন দেশে এই দিনটি পালন করা হয়। আজকে এই দিনটি নিয়ে কবিদের বিভিন্ন ধরনের উক্তি প্রদান করেছে। নানা রক্ত নানা কষ্ট অত্যাচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে আজকের এই স্বাধীনতা অর্জন হয়েছে। তাই এই দিনটি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের উক্তি দিয়েছে কবিরা। এ নিবন্ধি বিখ্যাত মনীষীদের উক্তি শেয়ার করা হয়েছে।

রক্ত আমাকে দাও, আমি তোমাকে স্বাধীনতা দেব” – সুভাষ চন্দ্র বসু

“স্বরাজ আমার জন্মগত অধিকার এবং আমি তা অর্জন  করব।” – বাল গঙ্গাধর তিলক

“দেশপ্রেম ধর্ম এবং দেশপ্রেমই ভারতের জন্য ভালবাসা” – বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

”ভারতবাসী হিসাবে একটা কথা মনে রাখা উচিত…নাগরিক হিসাবে তাদের যেমন অধিকার আছে তেমন কিছু কর্তব্যও আছে ” – সর্দার বল্লবভাই প্যাটেল

”সত্যমেব জয়তে” – মদন মোহোন মালভ্য

”ভুল করার স্বাধীনতা না থাকলে সেই স্বাধীনতার কোন মূল্য নাই” -মহাত্বা গান্ধী

”আমার ভারত মহান” – রাজীব গান্ধী

“দেশের শ্রেষ্ঠত্ব প্রেম ও আত্মত্যাগের মধ্যে রয়েছে যা জাতিদের নুপ্রাণিত করে” – সরোজিনী নাইডু

”সরফারোশি কি তামান্না অব হামারে দিল মে হ্যায়” – রামপ্রসাদ বিসমিল

”সাম্রাজ্যবাদের বিনাশ হোক’ – ভগত সিং

”পূর্ণ স্বরাজ” – জওহরলাল নেহেরু

প্রজাতন্ত্র দিবসের ক্যাপশন

১৯৫০ সালে ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের সংবিধান প্রণয়ন হওয়ার পরে সারাদেশে ২৬ শে জানুয়ারি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এই দিনটি তারা উৎসব আয়োজন এর মধ্যে দিয়ে উদযাপন করে। তাই এই দিনে আপনাদের ফেসবুকে প্রজাতন্ত্র দিবসের নানা ধরনের ক্যাপশন শেয়ার করতে চান। প্রজাতন্ত্র দিবসের সুন্দর সুন্দর ক্যাপশন আজকের এই অনুচ্ছেদে শেয়ার করা হয়েছে। সহজেই এই অনুচ্ছেদ থেকে সুন্দর সুন্দর ক্যাপশন সংগ্রহ করতে পারবেন। নিচে কিছু ক্যাপশন শেয়ার করা হলো।

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস
ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস

১।  পৃথিবীর বুকে যদি এমন কোনও জায়গা থেকে থাকে, যেখানে সবার আগে মানুষ নিজের অধিকারের স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করেছে, তাবে তা হল মহান ভারত – Romain Rolland

২।  ভারতবর্ষ সম্পর্কে আমি যতটুকু বুঝেছি, এই দেশ এমন এক দেশ যেখানে শুধুমাত্র দেশের নাগরিকেরাই নন, এমনকি স্বয়ং প্রকৃতিও এই দেশকে সম্মান করে – Mark Twain

৩। দেশভক্তি হল দান করার মত বিষয়, আর দান করার আগ্রহ নিজের বাড়ি থেকেই শুরু করা উচিত – Henry James

৪। একজন রাজনীতিবিদ নিজের কাজ করার জন্য সব কিছু করতে পারেন, এমনকি একজন দেশভক্তও হয়ে যেতে পারেন – William Randolph Hearst

৫। পৃথিবীতে এমন কিছু কিছু জায়গা রয়েছে যেখানে একবার আপনি গেলে সেই জায়গাটি আপনার হৃদয়ে চিরকাল রয়ে যাবে। আমারও এমন রয়েছে, আর সেই দেশটি হল ভারতবর্ষ (India)। প্রথমবার যখন ভারতে এসেছিলাম, এই দেশের প্রাচুর্য দেখে আমি বিস্মিত হয়েছিলাম। এই দেশের দারুণ আর্কিটেকচার দেখে আশ্চর্য হয়েছিলাম। এ’দেশের ঐক্যবদ্ধতা দেখে আনন্দ পেয়েছিলাম – Keith Bellows

৬। প্রজাতন্তের নিজস্ব কিছু নিয়ম রয়েছে আর তা লঙ্ঘন করা কখনই বরদাস্ত করা যাবে না – Jean-Pierre Raffarin

৭। সত্যিকারের প্রজাতন্ত্র মানে কি জানেন? পুরুষরা ঠিক তততাই অধিকার পাবেন, যতটা পাওয়ার যোগ্যতা তাঁদের রয়েছে; একচুলও বেশি নয়। আর নারীরাও ঠিক অততাই অধিকার পাবেন, একচুলও কম না।

৮। ভারতবর্ষের কাছে আমরা সারা পৃথিবীই ঋণী, কারণ ভারতীয়রাই আমাদের প্রথম গুনতে শিখিয়েছেন। যদি ওঁরা আমাদেরকে গুনতে না শেখাতেন তাহলে পাশ্চাত্যে কখনই কোনও বড় বিজ্ঞানীর জন্ম হতো না – Albert Einstein

৯। সারা জীবন জেলে বন্দী থাকার চেয়ে স্বাধীনতার জন্য প্রাণ বিসর্জন দেওয়া অনেক মহান – Bob Marley

১০। কেউ আমাদের সাহায্য করুন বা না করুন, আমরা আমাদের স্বাধীনতার জন্য যে কোনও মূল্য চোকাতে রাজি আছি। এমনকী, এই কারণে আমরা যেমন কাউকে সাহায্য করতে প্রস্থুত, তেমনই প্রয়োজনে বিরোধিতা করতেও পিছপা হব না – John F. Kennedy

প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে সম্মানিত অতিথি হয়ে প্রত্যেক বছরই বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীরা আমন্ত্রিত হয়। ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা জানানোর জন্য আমরা নানা ধরনের স্ট্যাটাস উক্তি অনলাইনে খুজি। দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা নিয়ে আজকের এই অনুচ্ছেদে খুব সুন্দর সুন্দর কিছু বার্তা শেয়ার করেছি। আপনারা খুব সহজেই এই ওয়েবসাইট থেকে এ সকল বার্তা শেয়ার করতে পারবেন।

১। ঐক্যবদ্ধ হন। দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করুন এবং দেশের পতাকার মান রক্ষার ভার নিজের কাঁধে তুলে নিন। প্রজাতন্ত্র দিবসের অনেক শুভেচ্ছা।

২। ভেদাভেদ ভুলে আজ এক নতুন দেশ গড়ার শপথ নেওয়া যাক। এক নতুন ভারত (India), যেখানে ধর্মান্ধতার নামে ঘৃণার কোনও স্থান নেই, ভালবাসাই হবে আমাদের একমাত্র ধর্ম। প্রজাতন্ত্র দিবসের অনেক শুভেচ্ছা।

৩। ভারতের পরিচয় হলে তুমি, কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারির জীবন হলে তুমি। সীমান্তের শেষ ইচ্ছে হলে তুমি, আর দেশের গর্বও হলে তুমি। প্রজাতন্ত্র দিবসে (Republic Day) সেই পথে চলারই শপথ নাও। বন্দে মাতরম!

৪। শত শত মানুষকে হাতে হাত মিলিয়ে প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করতে দেখে মন আনন্দে ভোরে ওঠে। আশা করি এমন একটি বিশেষ দিনে আপনারও জীবন খুশিতে ভরে উঠুক। রইল প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা।

ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস
ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস

৫। স্বাধীন মানসিকতা, বলিষ্ঠ বক্তব্য, শুদ্ধ রক্ত শিরায় শিরায়; আত্মিকরূপে গরবিত হন, হৃদয়ে খুশির ঢেউ খেলে যাক, এই প্রজাতন্ত্র দিবস সফল করুন (Republic Day Quotes In Bengali)।

৬। আমরা হয়ত পৃথিবীর সব থেকে ধনী দেশ নই; আমাদের দেশে হয়ত আর্থিক সাচ্ছন্দ্য নেই, পৃথিবীর ধনী দেশগুলিতে যা আছে; কিন্তু, আমার ভ্রাতা ও ভগিনীগণ, আমাদের দেশের মানুষের মধ্যে যে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান রয়েছে, তা অন্য কোনও দেশে নেই! জয় ভারতমাতার জয়।

৭। টাকা দিয়ে স্বাধীনতা কেনা যায় না। কোনও দেশ তখনই স্বাধীন হয়, যখন লক্ষ-লক্ষ মানুষ নিজেদের প্রাণ বলিদান দেন। তাই আজকের দিনে সেই সব সাহসী যোদ্ধাদের কথা স্মরণ করে আমাদের এই প্রজাতন্ত্রকে আরও বেশি সম্মান জানাই।

৮। এমন এক সুন্দর দেশের অংশ হতে পেরে আমি গর্বিত! তাই দেশের এই প্রজাতন্ত্র দিবসে অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল (Happy Republic Day)।

৯। ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা। চলুন আজকের দিনে একে অপরকে প্রতিজ্ঞা করি যে আগামী সময়ে আমাদের দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে আমরাও সমান ভাবে দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেব, এই দেশকে আরও সুন্দর করে তুলব।

১০। হাজার হাজার মানুষ একদিন নিজেদের জীবনের তোয়াক্কা না করে লড়াইয়ে নেমেছিলেন বলেই কিন্তু আমরা আজ এই দিনটি দেখতে পাচ্ছি। প্রজাতন্ত্র দিবসে (Happy Republic Day) তাঁদের বলিদানের প্রতি রইল সশ্রদ্ধ প্রণাম।

প্রজাতন্ত্র দিবসের এসএমএস

শত বাধা শুধু বিপত্তি পেরিয়ে নানা বিষয়ে বিরোধিতা করে আজকের এই স্বাধীনতা। হয়েছিল যুদ্ধ হয়েছিল অনেক রক্ত ক্ষয় হয়েছিল এই স্বাধীনতা অর্জনের জন্য। অহিংস আন্দোলন ও আইন অমান্য আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে মহাত্মা গান্ধী ভারত থেকে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন কায়েম করে ভারতকে ব্রিটিশ মুক্ত করেছে। ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে ভারতের এই রক্তকে আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে ভারত স্বাধীনতা অর্জন করে। এই আন্দোলনের পরে জন্ম নেয় দুটি স্বাধীন রাষ্ট্র। ভারতের এই স্বাধীনতা অর্জনের জন্য ১৮০০ সাল থেকে নানা অত্যাচার নানা অবিচার ও শোষণের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে 1947 সালের স্বাধীনতা অর্জন করে। স্বাধীন এই দেশে সংবিধান প্রণয়ন হওয়ার পর ২৬ শে জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করা হয়। একটি স্বাধীন দেশের স্বাধীন সংবিধান প্রণয়ন করে দেশটি এই দিনে ই প্রজাতন্ত্র দিবস হিসেবে গোটা দেশে আনন্দ ও নানা উৎসবের মধ্যে দিয়ে উদযাপন করে। তাই এই দিনে প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা জানানোর জন্য আমরা মোবাইলে এসএমএস করি। এই অনুচ্ছেদে প্রজাতন্ত্র দিবসের কিছু এসএমএস শেয়ার করা হয়েছে।

এমন এক বিশেষ দিন আমাদের উপহার দেওয়ার জন্য অগণিত শহীদদের শুভেচ্ছা জানাই! প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা (Happy Republic Day Wishes) জানাই আপনাকেও।

২। আমাদের ভাষা, আমাদের খাবার, এমনকী বেশভূষাও আলাদা। তবুও আমরা ঐক্যবদ্ধ, যে ঐক্যের সমস্ত কৃতিত্ব যায় আমাদের প্রজাতন্ত্রের। তাই ভারতবাসী হিসেবে আজ আমাদের গর্বের দিন।

৩। আমাদের সকলের প্রচেষ্টায় দেশের মান-সম্মান যেন আরও বাড়ে। কোনও সময় যেন ক্ষুন্ন না হয় আমাদের পতাকার অভিমান।

৪। ৭০ তম প্রজাতন্ত্র দিবসে ভগবানের কাছে এই প্রার্থনাই করি যে আজ থেকে প্রতিটি ভারতীয় যেন ভরা পেটে এবং খুশি মনে ঘুমতে যেতে পারেন। কোনও কৃষকই যেন আর আত্মহত্যা না করেন!

৫। প্রত্যেকটা দেশেরই কিছু না কিছু খামতি রয়েছে। সেই সব খামতি নিয়ে চর্চা না করে, তা দূর করা যায় কীভাবে, সেই নিয়ে ভাবা উচিত এবং একজন ভারতীয় হিসেবে প্রতিদিন গর্ববোধ করা উচিত যে এমন এক সুন্দর দেশের নাগরিক আমরা। প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা (Happy Republic Day Quotes)।

৬। ধর্মের ভেদাভেদিতে দেশ ভাগ হতে দেখেছি আমরা। তাই ধর্মের নামে আর লড়াই নয়। বরং দেশের ঐক্য রক্ষার স্বার্থে চলো হাতে হাত মেলাই।

৭। সবাইকে ৭০ তম প্রজাতন্ত্র দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন।

৮। আমাদের দেশের জন্য আজকের দিনটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চলুন আমরা সকলে মিলে সেই বৃহৎ উৎসবের শরিক হই (Republic Day Quotes In Bengali)।

৯। গনতান্ত্রিক অধিকারের থেকে মূল্যবান আর কিছু হয় না। তাই তো প্রতিটি মানুষেরই তাঁর এই অধিকার রক্ষার্থে লড়াই করা উচিত।

১০। গনতান্ত্রিক ভারতের নাগরিক হতে পেরে আমি গর্বিত। আমি ধন্য স্বাধীনভাবে কথা বলার অধিকার পেয়ে। তাই ৭০ তম প্রজাতন্ত্র দিবসে আমার কাছের মানুষটির জন্য রইলো অনেক অনেক প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন (Republic Day Wishes and Quotes)।

আমাদের এই ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস নানা উৎসব আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালন করা হয়। এই দিন শহীদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। তাই ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস নিয়ে স্ট্যাটাস ক্যাপশন উক্তি টি শেয়ার করেছি। আশা করি সকলকে ভালো লাগবে। মনোযোগ সহকারে আমাদের এই পোস্টটি পড়বেন। ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *